বয়সে ছোট স্বামী বেছে নিবেন কি? – NariBangla

বয়সে ছোট স্বামী বেছে নিবেন কি?

2 Replies

Lifestyle

সময় হয়েছে জীবনের অন্তরঙ্গ সঙ্গীকে খুঁজে নেয়ার। এরই মাঝে চলার পথে বন্ধু পেয়েছেন অনেক, কিন্তু তার মতো করে কাউকে পাননি। ছোট থেকেই সামাজিক নানা রীতি দেখে অভ্যস্ত। সেই সব রীতির সঙ্গে আপনার পছন্দের কোথাও যেন অমিল; আর বিপত্তি সেখানেই। মা-চাচীদের মুখে শুনেছেন স্বামীর বয়স স্ত্রীর চেয়ে বেশি হলে একজন রক্ষক পাওয়া যায়। সব দায়িত্ব তার কাঁধে থাকে, বউ থাকে নির্ভার।

niloy-moushumiআজ মনের মত পুরুষ পেয়েছেন কিন্তু বয়সে ছোট। কিংবা বয়সে ছোট কেও আপনাকে এতটা ভালবাসে যা আপনি খুজেছেন হাজার বছর ধরে।  তাই চিন্তায় পড়ে পরে গেছেন তাকে বিয়ে করবেন কিনা। অথচ আপনিই পেতে পারেন কিছু এমন সুবিধা যা সবার থেকে আলাদা –

যথার্থ প্রাধান্য
স্বামী বয়সে ছোট হলে সঙ্গীনীকে যথার্থ প্রাধান্য দিতে প্রস্তুত থাকে। সঙ্গীনী বয়সে বড় হলে মমতাময়ী, অভিজ্ঞ ও সহিষ্ণুর ভূমিকা পালন করতে পারে। এসব দেখে সঙ্গীনীকে জীবনের সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিতে একটি ছেলের কোনো বাধা থাকে না। এমন নারী পুরুষের কাছে যথার্থ শ্রদ্ধা পান। তার দিক থেকে নারীর সফলতা এবং ব্যক্তি স্বাধীনতায়ও কোনো ধরনের বাধা আসে না।

খুশি রাখতে ব্যস্ত
প্রেমের পরিণতিতে সঙ্গিনীর মনের সঙ্গে সঙ্গীর মনের রসায়ন অনেক বেশি ভালো থাকে। তাই কম বয়সী পুরুষরা তার সঙ্গীনীকে খুশি করতে সব সময় ব্যস্ত থাকেন। এ ধরনের পুরুষরা স্মার্ট, চটপটে এবং অভিজ্ঞতা দিয়ে নারীর মন জয় করতে সব সময় প্রস্তুত।niloy-moushumi

সর্বদা আপনার জন্য
তিরিশের কোঠায় পা দিয়েছেন অথচ যেকোনো কারণেই তিনি একাকী। এ ধরনের পুরুষরা ঝামেলাবিহীন থাকেন। তারা প্রেম-ভালোবাসার বিষয়ে যথেষ্ট আশাবাদী। তিনি বেশি বয়সী নারীর প্রতি আস্থা রাখতে পারেন।

বিস্ময়ের জায়গা
নিজের চেয়ে বেশি বয়সী নারীর প্রতি আকর্ষণের অন্যতম কারণ হলো, তাদের অভিজ্ঞতা এবং গবেষণাধর্মী আচরণ। অনুকরণীয় এবং অভাবনীয় আচরণ সব সময়ই তাদের মুগ্ধ করে চলে। বিষ্ময় জাগায় প্রতিটি সময়। আর তাই আগ্রহের কমতি থাকে না।

Moushumi-Niloyজীবনে আসবে নতুনত্ব
কম বয়সী পুরুষের সঙ্গে বন্ধুত্ব থাকলে তিনি সঙ্গীনীকে ফেলে আসা রঙিন দিনে ফিরিয়ে নিয়ে যাবে। তখন যৌবনের আয়ু বেড়ে যাবে অনেক বেশি। দুজনের কাটানো সময় খুব মজার ও উপভোগ্য হবে। কোনো ঝামেলা আর সৌভাগ্যবান সে নারীকে বিষণ্ণ করতে পারবে না।

তাই বয়সকে প্রাধান্য না দিয়ে ভালোবাসাকে প্রাধান্য দিন। শুধু নিশ্চিত হয়ে নিন এটি তার ফ্যান্টাসী নয়, ভালবাসা। ভালবাসুন প্রানখুলে। যেন নিন বুঝে নিন তার মনের ক্ষুদা। কখনো যেন তার এমন মনে না হয় কম বয়সী কাউকে বিয়ে করলে সে আপনার চেয়ে বেশি ভালবাসা পেত। আপনার ভালবাসা যেন সর্বদা সবুজ থাকে। ভরিয়ে দিতে পারে তার মন।

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

//GA Code Start //GA code end