ভয়ংকর সুন্দর ভাবনার চলচ্চিত্র ভাবনা – NariBangla

ভয়ংকর সুন্দর ভাবনার চলচ্চিত্র ভাবনা

4 Replies

stardom
ভাবনা

দু’বছর বয়স থেকেই ক্যামেরার সাথে পরিচিতি। শোবিজে আগমন তার ২০০৮ সালে। “নক আউট ” ছিলো তার প্রথম নাটক। আলোচিত হন মোস্তফা সারয়ার ফারুকির “ফার্স্ট ডেট” নাটক দিয়ে। বয়ফ্রেন্ডকে রুমে ডাকেন রুম ডেট করার জন্য। তখন থেকেই নাটক পাড়ার সবাই বুঝে গেছে এ মেয়ে সাহসী। যাবে অনেক দূর।  বলছি অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনার কথা।

অল্প দিনেই এই লাস্যময়ী অভিনেত্রী তার অভিনয় দক্ষতা ও মেধা দিয়ে দর্শক-নির্মাতাদের নজরে আসতে সক্ষম ভাবনাহন। অভিনয় জীবনের শুরু থেকেই ভাবনা তার অভিনয়ের জাদু দিয়ে বেশকিছু জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটক দর্শককে উপহার দিয়ে এসেছেন। এর মধ্যে রয়েছে- ‘চৌধুরী ভিলা’, ‘অচেনা প্রতিবিম্ব’, ‘শূন্য সমীকরণ’, ‘চেনা মুখ অচেনা মুখ’, ‘জয় পরাজয়’, ‘সোনার সুতা’ প্রভৃতি।

ভাবনা শুধু ছোট পর্দায়ই সীমাবদ্ধ নন, চলচ্চিত্রেও তার পদচারণা রয়েছে। ভাবনার অভিনীত ক্যারিয়ারের প্রথম ছবি ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’ মুক্তি পেলো। আইচের পরিচালনায় ছবিটিতে ভাবনার নায়ক হিসেবে আছেন কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা পরমব্রত। চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে ভাবনা বলেন, চলচ্চিত্রে অভিনয় করব, এটা আমার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল। এই ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে আমার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এজন্য অনেক শ্রম দিয়েছি। সর্বোচ্চ চেষ্টা দিয়ে এতে অভিনয় করেছি। ছোট পর্দার ভাবনাকে রুপালি পর্দায় কেমন লাগে, তা দর্শকের কাছ থেকে শোনার জন্য অধীর অপেক্ষায় বসে রয়েছি। তবে প্রথম কাজ বলে অনেক ভুলত্রুটি হতেও পারে। আশা করি সেটা সবাই ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

Ashna-Habib-Bhabnaহঠাৎ করেই একদিন ভাবনাকে প্রস্তাব দিলেন অনিমেষ আইচ, ‘এই তুমি নয়নতারা হবে?’ নয়নতারা কে? কিছুই জানতেন না ভাবনা। অনিমেষ শুধু এটুকু বললেন, ভারতীয় লেখক মতি নন্দীর গল্প ‘জলের ঘূর্ণি ও বকবক’ অবলম্বনে সিনেমা বানাবেন, প্রধান নারী চরিত্রের নাম নয়নতারা। গল্পটা পড়া ছিল না ভাবনার, তবু ‘হ্যাঁ’ বলার আগে দ্বিতীয়বার ভাবলেন না। তখনই সিদ্ধান্ত নিলেন, গল্পটা আর পড়বেন না, একেবারে পাণ্ডুলিপিটাই পড়বেন। এতে নাকি চরিত্রে ঢুকতে সুবিধা হয়। গল্পটা দুজন নিরপরাধ মানুষের, পরিবেশ ও পরিস্থিতিতে পড়ে তাদের জীবনে নানা মোড় নেয়, ভয়ংকর সব মোড়।

ব্যক্তি অনিমেষ ও তাঁর পরিচালনা নিয়েও ভীষণ উচ্ছ্বসিত ভাবনা, ‘বাংলাদেশের সব অভিনয়শিল্পীই তাঁর সঙ্গে কাজ করতে চাইবেন, এমনই আস্থাভাজন এক পরিচালক। এমনিতেই ওকে নিয়ে সবাই বলে, অনিমেষ টিভি নাটকের খোলসে সিনেমাই বানায়। ওর প্রথম সিনেমা দেখেও মানুষ প্রশংসা করেছে। ও সব সময় শিল্পচর্চাই করে যেতে চায়। শিল্পের জায়গায় কোনো ছাড় দেয় না—হোক সেটা বড় কিংবা ছোট পর্দা। ’

ছবিতে ভাবনার নায়ক পশ্চিমবঙ্গের পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। তাঁর মতো জনপ্রিয় অভিনেতার সঙ্গে অভিনয় করতে Ashna Habib Bhabna Model and Actress pictureপেরেও ভীষণ উচ্ছ্বসিত ভাবনা, ‘তিনি শুধু জনপ্রিয় অভিনেতাই নন, পরিচালকও। তাঁর সঙ্গে কাজ করার মজাটা অন্য রকম। কলকাতার বাংলাটা তো একটু অন্য রকম। আমি সব সময় বলতাম, তোমরা মীনা কার্টুনের মতো কথা বলো। আমি আবার আমাদের আঞ্চলিক ভাষাগুলো তাঁকে শেখাতাম। পরম খুবই ফ্রেন্ডলি। আচরণে মনেই হবে না তিনি এত বড় একজন তারকা। ’

গত কয়েক বছরে তিনি অসংখ্য বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে- গ্রামীণফোন, মোজো, প্রাণ মি. ম্যাঙ্গো, পারটেক্স, রবি ইত্যাদি। একজন অভিনেত্রীই শুধু নন, ভাবনার আরেকটি বড় পরিচিতি হলো তিনি নৃত্যশিল্পী। ছোটবেলায়ই নৃত্যের ওপর নিয়মিত তালিম নিয়েছেন। তখন থেকেই নিয়মিত চর্চা করতেন। এখনো করে যাচ্ছেন। ২০০৩ সালে সেরা নৃত্যশিল্পী হিসেবে জাতীয় পুরস্কারও অর্জন করেছেন। এরপর ২০০৬ সালে বুলবুল ললিতকলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও সেরা নৃত্যশিল্পী হিসেবে পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। এগুলো হচ্ছে- হলদিয়া উৎসব (ভারত) ও ইয়ুথ ফেডারেশন পুরস্কার (মালয়েশিয়া)।

4 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

//GA Code Start //GA code end