শ্রাবন্তী ছেলের সাথে ছবি নিয়ে আলোচিত সমালোচিত – NariBangla

শ্রাবন্তী ছেলের সাথে ছবি নিয়ে আলোচিত সমালোচিত

2 Replies

stardom

কলকাতার মিষ্টি হাসির নায়িকা শ্রাবন্তীর সম্প্রীতি নিজের ছেলের সাথে রোমান্টিক পোজের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। আর এ নিয়ে জন্ম হয়েছে আলোচনা সমালোচনা।

শ্রাবন্তীর জন্ম ১৯৮৭ সালে। মাত্র দশ বছর বয়সে শ্রাবন্তীরূপালী পর্দায় দেখা যায় তাকে। মাত্র ১৬ বছর বয়সে ফিল্ম ডিরেক্টর রাজিব বিশ্বাসকে বিয়ে করেন। তাদের ঘরে জন্ম নেয় ছেলে ঝিনুক। সম্প্রতি ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় এই দম্পতীরর। এক বছর একা থাকার পর জুলাই ২০১৬ সালে মডেল ও ফটোগ্রাফার ক্রিশানকে বিয়ে করে শ্রাবন্তী।

সম্প্রতি নিজের ছেলের সাথে রোমান্টিক একটি ছবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় বয়ে যায়। ছবিতে দেখা যায় ছেলে ঝিনুক হাসিমুখে বিশেষ দৃষ্টিতে শ্রাবন্তীর গালে হাত বুলিয়ে দিচ্ছে। হাতের স্পর্শে শিহরিত শ্রাবন্তীকে দেখা যাচ্ছে আবেদনময়ী ভঙ্গীতে। ছবি দেখে মনে হচ্ছে কোন রোমান্টিক গানের সাথে নাচছে শ্রাবন্তী ও ঝিনুক।

srabontiছবিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বয়ে যায় আলোচনা সমালোচনা। অনেকে মন্তব্য করেছেন, ছেলের সাথে সেক্সি ভঙ্গী, এ কেমন মা? কেউ বলছে, এটা কি মা ছেলের ছবি? কেউ বলছে, এ কেমন মা, নিজের ছেলের সাথে এমন ছবি তুললো! একজন প্রশ্ন করেছে, নিজের ছেলের সাথে রোমান্টিক পোজ দিতে ইচ্ছে করলো?

আবার অনেকে ছবিটি তে খারাপ কিছু দেখছে না। তারা বলছে নাচের সময় ছবিটি তোলার কারনে হয়তো এমন এক্সপ্রেশন চলে আসছে ক্যামরায়। আবার অন্যরা বলছে যে ছবিটি তুলেছে সে খারাপ ভাবে তুলেছে। মা ছেলের নাচের মাঝে খারাপ কিছু যারা পাচ্ছে এটা তাদের মানসিকতার কারণে।

এ নিয়ে শ্রাবন্তীর মতামতও এসেছে মিডিয়ায়। Srabontiনিজের ছেলের সাথে বরাবরই বন্ধুর মত সম্পর্ক শ্রাবন্তীর। এক সময় ছেলের সাথে নিজের এক ছবি টুইটারে পোষ্ট করে শ্রাবন্তী ক্যাপশন দিয়েছে, আমার বয়ফ্রেন্ড। তাই ছেলের সাথে ছবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বাড়াবাড়িতে মন্তব্য দেয়ার প্রয়োজন নেই বলে মনে করছে তিনি।

এদিকে জানা যায় শ্রাবন্তী – ক্রিশানের বিয়ের অনুষ্ঠানে ছবিটি তোলা। মায়ের বিয়েতে মা – ছেলের এই নাচ বিয়ের অনুষ্ঠানে বাড়তি আনন্দ জুগিয়েছে অতিথিদের মাঝে।

2 comments

  1. Anonymous

    মানতেছি পোজটা ঠিক নেই।কিন্তু এখানে একজন ছেলে তার মাকে চুমু দিচ্ছে। এতে অসুবিধার কিছু তো নেই।ছেলে মাকে জড়িয়ে ধরতেই পারে।চুমুও খেতে পারে।এতে দোষের কি আছে?যাদের মন নিচু তারাই এটাকে খারাপ ভাবে নিচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

//GA Code Start //GA code end